টিটিসির শিক্ষক শিবের বিরুদ্ধে পর্ণগ্রাফি এ্যাক্টে থানায় মামলা, আসামী ধরা ছোঁয়ার বাইরে

92

স্টাফ রিপোর্টার।।
খুলনার ফুলবাড়িগেট তেলিগাতীর সরকারী কারিগড়ি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি)’র ইলেকট্রিক্যাল বিভাগের সিনিয়র ইনসট্রাক্টর শিব শংকর হাওলাদারের বিরুদ্ধে নগরীর খালিশপুর থানায় পর্ণগ্রাফি নিয়ন্ত্রন আইন-২০১২ এ্যাক্টে মামলা দায়ের হয়। মামলার ৪ দিনি অতিবাহিত হলেও পুলিশ শিব শংকরকে আটক করতে পারেনি।
মামলার বিবরনী সূত্রে জানা যায়, খুলনার পলিটেকনিক্যাল কলেজের এক শিক্ষিকার হোয়াটস এ্যাপে শিব শংকর বিভিন্ন সময়ে অশ্লীল ছবি ও ভিডিও পাঠাতো । এক পর্যায়ে শিব শংকর নানা কুপ্রস্তাব দিতে শুরু করে। বিষয়টি নিয়ে ওই নারী শিক্ষিকা তার স্বামীকে অবগত করলে তারা আদালতের সরনাপন্ন হয়। এ বিষয় খুলনা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট খালিশপুর থানাকে ওই শিক্ষিকার মামলা নিতে নির্দেশ প্রদান করেন। আদালতের নির্দেশনা পেয়ে খালিশপুর থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন গত ৩১ অক্টোবার পর্ণগ্রাফি আইনে মামলা রুজু করেন। যার মামলা নং ৩৮।
তথ্যমতে, মামলা দায়ের হলেও পুলিশ মামলার আসামীকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আটক করতে পারেনি। অথচ মামলার আসামী শিব শংকর হাওলাদার প্রকাশ্যে ঘুরে মামলার বাদিনীকে ভয়ভীতি সহ হুমকি দিচ্ছে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য। মামলার বাদিনী বিষয়টি নিয়ে কেএমপি’র পুলিশ কমিশনারকে মুঠোফোনে অবগত করেন। এখানেই শেষ নয়, শিব শংকরের বিরুদ্ধে এর আগেও নারী কেলেংকারীর নানা অভিযোগ রয়েছে। তাঁর এই ধরনের অপরাধের বিষয় নিয়ে এখনও কেউ ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায়নি। ফলে দীর্ঘ দিন যাবৎ শিব শংকর অপকর্ম চালিয়ে যেত লোক চুক্ষুর অন্তরালে।
মামলার বাদিনী বলেন, আমি থানায় মামলা দায়ের করেছি , অথচ পুলিশ কি কারণে এখনও আসামী ধরছে না , তা আমি বোধগম্য নই। প্রয়োজন হলে শিবের বিষয়টি নিয়ে আমি সংবাদ সম্মেলন করব।
খালিশপুর থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, মামলাটি এখনও তদন্তধীন রয়েছে। তবে তদন্ত শেষ হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।