ওয়ালটনের কিস্তি সুরক্ষার অর্থ দিয়ে গরু কিনবেন রহিমা বেগম

123
দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের কিস্তি সুরক্ষা অফারের প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে একটি গরু কিনতে চান গৃহবধূ রহিমা বেগম। ওয়ালটন পণ্যের কিস্তি ক্রেতা স্বামী আবদুল জলিলের মৃত্যুজনিত কারণে কিস্তি সুরক্ষা সুবিধায় নগদ ৫০ হাজার টাকা পেয়েছেন রহিমা বেগম।  বৃহস্পতিবার ওয়ালটনের নোয়াপাড়া প্লাজার পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কারের অর্থ রহিমা বেগমের হাতে তুলে দেয়া হয়।
বিশ্বে এই প্রথম গ্রাহকদের জন্য কিস্তি সুরক্ষা সুবিধা চালু করেছে ওয়ালটন প্লাজা। ওয়ালটন পন্য কিস্তিতে ক্রয় করে কিস্তি চলমান অবস্হায় ক্রেতা বা তার পরিবারের সদস্যের মৃত্যুতে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত আর্থিক সুবিধা প্রদান করা হয়।
রহিমা বেগম খুলনার ফুলতলা উপজেলার জামিরাহাট পিপড়াইল গ্রামের শেখ আবদুল জলিলের স্ত্রী।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জামিরা ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ আসরাফ, ওয়ালটনের খুলনা এরিয়ার আরসিএম খালেদ আহমেদ, ওয়ালটন প্লাজা নওয়াপাড়া শাখার ব্যবস্হাপক মোঃ আনিসুর রহমান, ডেপুটি ম্যানেজার হায়ার সাচ্চু খান, ডেপুটি ম্যানেজার (ডিলার) আবদুস সামাদ, জামিরার পিপড়াইলের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং ওয়ালটন প্লাজা নওয়াপাড়ার সকল কর্মকতাবৃন্দ।
ওয়ালটন প্লাজা নওয়াপাড়া শাখার ব্যবস্হাপক মোঃ আনিসুর রহমান বলেন,
রহিমা বেগমের স্বামী শেখ আবদুল জলিলের একটি চায়ের টং দোকান ছিলো। খুবই গরীব কাস্টমার,শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি মারা যান। তার একটি শিশু পুত্র রয়েছে।
তিনি ১৪ হাজার ৯০০ টাকার একটি ওয়ালটন এলইডি টিভি কিস্তিতে ক্রয় করেন। কিন্তু শেষ কিস্তির পূর্বেই মারা যান,তাই সহায়তা ৫০ হাজার টাকা পেয়েছেন তার স্ত্রী রহিমা বেগম।
ওয়ালটনের কিস্তি সুরক্ষা অর্থ হয়ে আবেগ তাড়িত কন্ঠে রহিম বেগম বলেন, দরিদ্র পরিবারে স্বামীর মৃত্যুর পর আরো দুশ্চিন্তা ভর করে। ঠিক এমনই সময় ওয়ালটন কিস্তি সুরক্ষার সুবিধার অর্থ তার হাতে তুলে দেওয়ায় তিনি স্বস্তি ফিরে পেয়েছেন। এ অর্থ দিয়ে একটি গরু কিনে তিনি সংসারের স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে চান। ওয়ালটন কিস্তি গ্রাহকদের জন্য এ সুবিধা চালু করায় তিনি ওয়ালটনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।